Top Ten উন্নয়ন কর্মীদের কক্সবাজারে সংবর্ধনা-২০১৭



ফারইষ্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের সারাদেশের বিজয়ী ‘Top Ten উন্নয়ন কর্মীদের কক্সবাজারে সংবর্ধনা-২০১৭’-এ প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন কোম্পানী’র পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান মোঃ নজরুল ইসলাম। কক্সবাজার হোটেল দি সী প্যালেসে বিশাল অডিটোরিয়ামে আয়োজিত উক্ত সংবর্ধনায় গেষ্ট অব অনার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ) পরিচালনা পর্ষদের সদস্য জনাব বোরহান উদ্দিন আহমেদ। কোম্পানী’র মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মোঃ হেমায়েত উল্যাহ্’র সভাপতিত্বে Top Ten উন্নয়ন কর্মীদের জন্য দু’দিনব্যাপী এই আয়োজনের দ্বিতীয় দিনে অনুষ্ঠিত উক্ত সংবর্ধনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কোম্পানীর পলিসি এন্ড ক্লেইমস সাব-কমিটির চেয়ারপার্সন মিসেস আয়েশা হুসনে জাহান, পরিচালকবৃন্দ জনাব রুবাইয়াত খালেদ ও জনাব মোঃ তানভীরুল হক। অন্যান্যেদের মধ্যে এডিশনাল ম্যানেজিং ডাইরেক্টর এন্ড সিএফও জনাব মোঃ আব্দুল খালেক এফসিএ , ডেপুটি ম্যানেজিং ডাইরেক্টর এন্ড কোম্পানী সেক্রেটারী জনাব সৈয়দ আব্দুল আজিজ, ডেপুটি ম্যানেজিং ডাইরেক্টর এন্ড হেড অব এইচআরডি জনাব এ কে এম হেমায়েত উদ্দিন, ডেপুটি চীফ ফাইন্যান্স অফিসার মোহাম্মদ আলমগীর কবির এসিএ, সহ কোম্পানীর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। উক্ত Top Ten সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সারাদেশ থেকে আগত বিজয়ী উন্নয়ন কর্মীসহ কোম্পানীর প্রায় ১২’শ কর্মকর্তা-কর্মচারী কোম্পানীর মনোগ্রাম খচিত গেঞ্জি পড়ে অংশ নেয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দ কোম্পানীর একক ও সার্বজনীন বীমার মেয়াদোত্তীর্ণ বীমা দাবীর প্রায় ৬ কোটি টাকার ২৫৮টি চেক হস্তান্তর করেন। সন্ধ্যায় একইস্থানে আয়োজিত বিসর্গ শিল্পী গোষ্ঠী পরিচালিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বিশেষ আকর্ষন ছিল ইন্ডিয়ান মিরাক্কেল শিল্পী আরমানের অংশগ্রহণ। বিশিষ্ট কন্ঠশিল্পী রবি চৌধুরীর একক সঙ্গীতানুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শেষে র‌্যাফেল ড্র’এর সমাপনী আয়োজনে বিজয়ীদের মধ্যে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠান শেষে সকলে গ্রান্ড ডিনারে অংশ নেয়। দু’দিনব্যাপী এই আয়োজনের প্রথমদিন একইস্থানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে কোম্পানীর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আঞ্চলিক গান, কৌতুক, আবৃত্তি ইত্যাদি পরিবেশনার মধ্যদিয়ে ১’শ পুরষ্কার সমৃদ্ধ আকর্ষনীয় র‌্যাফেল ড্র’র প্রথম পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। শিল্পী ওবায়দুল্লাহ তারেক এর একক সঙ্গীতানুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শেষে সকলে কোম্পানী প্রদত্ত মেজবানে অংশ নেয়।